Main Menu

চামড়ার দাম নিয়ে সিলেটে হতাশা

Sharing is caring!

সিলেটে কোরবানির পশুর চামড়ার বাজারে চরম হতাশা বিরাজ করছে। ভালো দাম পাওয়ার প্রত্যাশা নিয়ে বাজারে চামড়া এনে দাম শুনে অবাক হচ্ছেন খুচরা বিক্রেতারা। এক লাখ টাকা মূল্যের গরুর চামড়ার দাম ২০০/৩০০ টাকাও উঠছে না।

চামড়ায় কাটা-ছেঁড়া আছে- এমন অজুহাতে বাদের তালিকায় ফেলে দাম কমিয়ে দিচ্ছেন পাইকাররা। এ নিয়ে পাইকারদের সঙ্গে খুচরা বিক্রেতাদের বাগবিতণ্ডাও হচ্ছে। এ অবস্থায় সিলেটে চামড়া ১০০ থেকে ৪০০ টাকার মধ্যে কেনা-বেচা হতে দেখা গেছে।

কিন ব্রীজ এলাকায় কোরবানির গরুর চামড়া বিক্রি করতে আসা আবুল মিয়া বলেন, ৭টি গরু ও ১১টি খাসির চামড়া তিনি বিক্রি করতে নিয়ে এসেছেনে বাজারে। গরুর চামড়া ১৫০ টাকা করে বিক্রি করেছেন কিন্তু খাসির চামড়ার দাম হচ্ছে ২০ টাকা করে। তিনি বিক্রি না করে খাসির চামড়াগুলো সেগুলো নদীতে ফেলে দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছেন। সরকার চামড়ার দাম নির্ধারণ করলেও বাজারে পাইকাররা সরকারি দরের ধারে কাছে যাচ্ছেন না।

মৌসুমী চামড়া ব্যবসায়ী আনোয়ার মিয়া জানান, লাভের আশায় তিনি গ্রাম থেকে ২০টি গরুর চামড়া গড়ে ৫০০/৬০০ টাকায় কিনে এনেছেন। বাজারে বিক্রি করতে এসে গড়ে ২০০ টাকাও দাম উঠছে না।

চামড়া কম দামে কিনতে চাওয়ার কারণ জানতে চাইলে পাইকার নুর মিয়া বলেন, আমরা খুচরা বাজার থেকে চামড়া সংগ্রহ করে ঢাকায় বিভিন্ন কোম্পানীতে সরবরাহ করে থাকি। এসব কোম্পানী আামাদের কাছ থেকে বাকিতে চামড়া নিয়ে সারাবছর ব্যবসা করে কিন্তু আমাদের টাকা দিতে চায় না, তাই তারা দামে চামড়া কিনতে আগ্রহী নন। একটি কোম্পানীর কাছে তিনি ৩১ লক্ষ টাকা পান, সেই কোম্পানী ঈদের আগে তাকে মাত্র ২০ হাজার টাকা পরিশোধ করেছে।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*