Main Menu

৫৫ বছরের বন্ধুর বিদায়ে অশ্রুসিক্ত আবুল হায়াত

Sharing is caring!

সর্বস্তরের শ্রদ্ধাজ্ঞাপনে বেলা ১১টার দিকে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে নেওয়া হয় বরেণ‌্য অভিনেতা-নাট‌্যজন ড. ইনামুল হকের মরদেহ। তাকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে হাজির হয়েছিলেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র ব্যারিস্টার ফজলে নূর তাপস, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ, বরেণ‌্য অভিনেতা আবুল হায়াত প্রমুখ। কিন্তু প্রিয় বন্ধুকে বিদায় জানাতে গিয়ে কান্নায় ভেঙে পড়েন আবুল হায়াত।

মেয়ে নাতাশা হায়াতকে সঙ্গে নিয়ে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে হাজির হয়েছিলেন আবুল হায়াত। এ পরিস্থিতিতে বাবাকে সান্ত্বনা দেয়ার চেষ্টা করেন তিনি। কিন্তু তাতে বন্ধু হারানোর ব‌্যথার অশ্রুজল থামেনি। এ সময় উপস্থিত গণমাধ‌্যমকর্মীদের আবুল হায়াত বলেন ‘আমাদের ৫৫ বছরের বন্ধুত্ব। এই সংখ্যাটি এখন শুধুই শোকের। আর পারছি না, কিছুই বলার নেই।’

সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট আয়োজিত এই শ্রদ্ধা নিবেদনে উপস্থিত ছিলেন ড. ইনামুল হকের দুই জামাতা অভিনেতা লিটু আনাম ও সাজু খাদেম এবং দুই মেয়ে হৃদি হক-প্রৈতি হক। এছাড়াও হাজির হয়েছিলেন অভিনেত্রী শাহনাজ খুশি, তানজিকা, মোমেনা চৌধুরী, বৃন্দাবন দাস, মীর সাব্বির প্রমুখ।

শহীদ মিনারের শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে বাদ জোহর বনানী কবরস্থানে সমাহিত করা হয় ড. ইনামুল হককে।

সোমবার (১১ অক্টোবর) অসুস্থ হয়ে পড়লে ড. ইনামুল হককে শান্তিনগর ইসলামী ব‌্যাংক হাসাপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। এ সময় চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। আনুমানিক বেলা ৩টার দিকে মারা গেছেন তিনি। ধারণা করা হচ্ছে, হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মারা গেছেন তিনি।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*