Main Menu

৩৭ রানে সাত উইকেট হারিয়ে ২৫১ রানে অলআউট বাংলাদেশ

Sharing is caring!

সেশন শেষ হওয়ার ঠিক আগমুহূর্তে আসা-যাওয়ার মিছিলে বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানরা। এমন পরিস্থিতিতে ফলোঅনে টাইগার বাহিনী। প্রথম ইনিংসে ২৫১ রানে সবকটি উইকেট হারায় বাংলাদেশ। যেখানে ফলোঅন এড়াতে দরকার ছিলো ২৯৪ রান। তবে বাংলাদেশকে ফলোঅনে না ফেলে আবারো ব্যাটিংয়ে নামে স্বাগতিকরা। শ্রীলঙ্কার অভিষিক্ত প্রাভিন জয়াবিক্রমার ঘূর্ণিতেই দিশেহারা বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা। এখনও পর্যন্ত বাংলাদেশের হারানো ৮ উইকেটের ৬টিই নিয়েছেন তিনি।

শ্রীলঙ্কা ৭ উইকেট হারিয়ে ৪৯৩ রানে ইনিংস ঘোষণা করে ব্যাটিং ছেড়ে দিয়েছে বাংলাদেশকে। ফলোঅন এড়াতে হলে বাংলাদেশকে করতে হবে অন্তত ২৯৪ রান। অথচ, ২৫১ রান তুলতেই দলের সব ব্যাটসম্যানরা সাকঘরে ফেরেন। ২৪১ রানে ৭ম, ২৪৩ রানে পড়েছে ৮ম উইকেট এবং ২৪৭ রানে ৯ম ও ২৫১ রানে ১০ম উইকেটের পতন ঘটে।

বাংলাদেশের একাদশ সাজানো হয়েছে ৬ ব্যাটসম্যান আর ৫ বোলার দিয়ে। এরমধ্যে ওপেনার সাইফ হাসান আগের ম্যাচের তুলনায় কিছুটা উন্নতি করলেও তিনি আউট হয়েছেন ২৫ রান করে। আগের ম্যাচে দুর্দান্ত সেঞ্চুরি করা নাজমুল হোসেন শান্ত বিদায় নিয়েছেন ‘ডাক’ মেরে।

তামিম ইকবাল একপ্রান্ত আগলে লড়াই চালিয়ে যান। ভালোই ব্যাটিং করছিলেন। কিন্তু ৯০ এর ঘরে গেলে যে তার কী হয়! আজও তিনি আউট হলেন ৯২ রানে। এরপর মুমিনুল-মুশফিকের লড়াই। বাংলাদেশের মিডল অর্ডারের সবচেয়ে বড় শক্তি। বলা যায়, বাংলাদেশের ব্যাটিং লাইনআপের কোমর শক্ত এই দু’জনের কারণে।

তবে মুমিনুল আর মুশফিকের জুটিটা স্থায়ী হলো ৬৩ রানের জন্য। ৪০ রান করে বিদায় নেন মুশফিক। তার বিদায়ের পর তৃতীয় সেশনের শুরুতে লিটন দাসকে নিয়ে জুটি বাধার চেষ্টা করেন মুমিনুল। কিন্তু ৪৯ রানের মাথায় গিয়ে তিনিও আউট হয়ে গেলেন। হাফ সেঞ্চুরিটাও করতে পারলেন না।

লিটন দাসও হতাশ করলেন। মাত্র ৮ রান করে অভিষিক্ত প্রাভিন জয়াবিক্রমার বলে উইকেট দিয়ে বিদায় নেন তিনি। প্রতিষ্ঠিত সব ব্যাসম্যানই বিদায় নিলেন ২২৪ রানের মধ্যে। এরপর বোলারের কোটায় খেলতে নামা অলরাউন্ডার মিরাজ এবং তাইজুল জুটি বাধেন। ১৭ রান টিকলেন তারা। ১৬ রান করে সাজঘরের পথ দেখলেন মিরাজ, সেই জয়াবিক্রমার বলে।

আজ ম্যাচের তৃতীয় দিন মাত্র ১৫ মিনিট ব্যাটিং করেই ইনিংস ঘোষণার সিদ্ধান্ত জানিয়েছে স্বাগতিকরা। তাসকিন আহমেদের বোলিংয়ে মুশফিকুর রহীমের দুর্দান্ত ক্যাচে আগেরদিনের অবিচ্ছিন্ন জুটি ভাঙতেই ৪৯৩ রানে ব্যাটিং ছেড়ে দিয়েছে শ্রীলঙ্কা।

এর আগে, টেস্টের তৃতীয় দিনের দ্বিতীয় বলেই রমেশ মেন্ডিসকে ক্যাচে পরিণত করেন পেসার তাসকিন আহমেদ। এই উইকেট পতনের সঙ্গে সঙ্গেই দলীয় ৪৯৩ রানে ইনিংস ঘোষণা করেছে শ্রীলঙ্কা। চার উইকেট নিয়ে টাইগারদের সফলতম বোলার তাসকিনই। লঙ্কানদের প্রথম ইনিংসে সর্বোচ্চ ১৪০ রান করেছেন থিরিমান্নে, এছাড়া সেঞ্চুরি পেয়েছেন করুণারত্নেও। এবার পাহাড়সমান রানের চ্যালেঞ্জ সামনে রেখে নিজেদের প্রথম ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নেমেছে বাংলাদেশ।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*