Main Menu

২৩ বছরেও রোজকে ছাড়াতে পারেননি কেট

Sharing is caring!

১৯৯৬ সালের অভিষিক্ত ছবি ‘হ্যাভেনলি ক্রিয়েচার্স’র জুলিয়েট বলেন আর সর্বশেষ এ বছরের সেপ্টেম্বরে মুক্তি পাওয়া ‘অ্যামোনাইট’ ছবির মেরি অ্যানিংই বলেন- ‘টাইটানিক’ ছবির ‘রোজ’কে এখনও ছাড়িয়ে যেতে পারেননি কেট উইন্সলেট।

অবশ্য এ হিসাবটা যদি জনপ্রিয়তার দিক থেকে ধরা হয়। কিন্তু তার ২৬ বছরের চলচ্চিত্র ক্যারিয়ারে উচ্চমার্গের চরিত্রে অভিনয়ের প্রশংসা করেছেন হলিউড চলচ্চিত্র বোদ্ধারা। সেগুলোর মধ্যে রয়েছে দ্য হলিডে ছবির ‘আইরিশ’, রিভলিউশনারি রোড ছবির ‘এপ্রিল হুইলার’, দ্য রিডারের ‘হানা’, কারনেজ ছবির ‘ন্যান্সি কাওয়ান’, ওয়ান্ডার হুইলের ‘জিনি’ প্রভৃতি।

মজার ব্যাপার হচ্ছে, শেষোক্ত দুটি ছবিতে অভিনয় নিয়ে গত সেপ্টেম্বরে ভ্যানিটি ফেয়ার ম্যাগাজিন প্রতিনিধির কাছে অনুতাপ প্রকাশ করেছেন কেট। কারণ এগুলো বানিয়েছেন যৌন হেনস্তার অভিযোগে অভিযুক্ত দুই পরিচালক রোমান পোলানস্কি ও উডি অ্যালেন। তবে অস্কারজয়ী এ অভিনেত্রী তখন এটাও স্বীকার করেছেন, ‘উডির ব্যক্তি জীবন ও পরিবারের ব্যাপারে কিছুই জানি না। এসব ঘটনা সত্যি নাকি মিথ্যা, অভিনয়শিল্পীদের সেসব জানার কথাও নয়। এটা ঠিক, উডি অ্যালেন চমৎকার একজন পরিচালক। একইভাবে রোমান পোলানস্কি গুণী নির্মাতা। তাদের সঙ্গে কাজ করে দারুণ অভিজ্ঞতা হয়েছে আমার।’

এবার আসা যাক ফ্রান্সিস লি পরিচালিত ‘অ্যামোনাইট’ ছবিতে অভিনয় প্রসঙ্গে। এ ছবিতে একজন ব্রিটিশ মস্তিষ্ক বিশেষজ্ঞের চরিত্রে অভিনয় করেছেন কেট উইন্সলেট। ১৮৪০ সালের প্রেক্ষাপটে তৈরি হয়েছে এটি। এতে সমলিঙ্গের প্রেমের গল্পে জুটি হয়ে কাজ করেছেন সার্শা রোনানের সঙ্গে। মূলত ১৮ শতকের বিখ্যাত ফসিল শিকারি মেরি অ্যানিংয়ের জীবনী অবলম্বনে নির্মিত এ ছবি।

ইংলিশ চ্যানেলের তলদেশে জুরাসিক পর্বের ফসিল আবিষ্কারে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রয়েছে প্রত্নজীবাশ্মবিদ মেরি অ্যানিংয়ের। এ ছবির কাহিনী গড়ায় উপকূলীয় এক ইংলিশ শহরকে কেন্দ্র করে। সেখানে ফসিল শিকারি মেরির সঙ্গে দেখা হয় স্বাস্থ্যোদ্ধারে আসা এক কম বয়সী নারীর। তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে।

টাইটানিকের ‘রোজ’ তার ক্যারিয়ারের জনপ্রিয়তম চরিত্র হলেও প্রশ্ন উঠেছে কেট কি নগ্নতাকে বেশি পছন্দ করেন? এ কারণেই কি তিনি এ রকম চরিত্রগুলোতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করছেন? এ ধরনের প্রশ্নের জবাব খুঁজে পাওয়া যায় তার অভিনীত কয়েকটি ছবির চরিত্র বিশ্লেষণে। হ্যাভেনলি ক্রিয়েচার্সের জুলিয়েট, জুডের সুয়ে, হাইডিয়াস কিনকি’র রুথ, কুইল্সের মেডিলিন, আইরিশের মুরডস, লিটল চিলড্রেনের সারাহ, দ্য রিডারের হানা চরিত্রগুলোতে কেটের বেশভূষা আর অভিনয় দেখলে হয়তো দর্শক এ প্রশ্নের উত্তর খুঁজে পাবেন সহজেই।

এদিকে ২৭ নভেম্বর মুক্তি পাওয়ার কথা রয়েছে অ্যাশলে এভিস পরিচালিত ব্ল্যাক বিউটি ছবিটি। এ ছবির নাম ভূমিকার চরিত্রে কণ্ঠ দিয়েছেন কেট। তবে তিনি রীতিমতো শিহরিত ২০২২ সালে মুক্তি প্রতীক্ষিত ‘অ্যাভেটার-২’ ছবির রোনাল চরিত্রটি নিয়ে। কারণ টাইটানিকের পর দ্বিতীয়বারের মতো কাজ করছেন অস্কারজয়ী পরিচালক জেমস ক্যামেরনের সঙ্গে। এ ছবিতে তার সঙ্গে আরও রয়েছেন- স্যাম ওয়ার্দিংটন, জোয়ে সালদানা, স্টিফেন ল্যাং, ম্যাট জেরাল্ড প্রমুখ। উল্লেখ্য, মূল ছবির ১৩ বছর পর মুক্তি পাবে দ্বিতীয় সিক্যুয়াল। স্বভাবতই নিজের সঙ্গেই নিজেকে যুদ্ধ করতে হবে এবার। ২৩ বছর আগের রোজকে কী ছাড়িয়ে যেতে পারবেন কেট?






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*