Main Menu

সিলেট জোনের সড়কগুলোর কাজ নিয়ে সংসদীয় কমিটির ক্ষোভ

Sharing is caring!

সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের আওতাধীন সিলেট জোনসহ দেশের অন্য কয়েকটি জোনের চলমান প্রকল্প কেন যথাসময়ে শেষ হচ্ছে না এনিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছে জাতীয় সংসদের অনুমিত হিসাব কমিটি। সড়ক নির্মাণ ও উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়নে ধীরগতি, বারবার সময় ও ব্যয় বৃদ্ধির কারণ ব্যাখ্যা এবং প্রকল্প বাস্তবায়নে অনিয়ম নিয়ে আগামী এক মাসের মধ্যে সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরকে একটি প্রতিবেদন দিতে বলেছে সংসদীয় কমিটি।

মঙ্গলবার জাতীয় সংসদ ভবনে অনুমিত হিসাব কমিটির বৈঠক হয়। বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন কমিটির সভাপতি উপাধ্যক্ষ আবদুস শহীদ এমপি।

জানা যায়, গোবিন্দগঞ্জ–মদনপুর–দিরাই–শাল্লা–জলসুখা–আজমিরিগঞ্জ–হবিগঞ্জ মহাসড়কের শাল্লা–জলসুখা অংশ নির্মাণে প্রকল্প নেওয়া হয় ২০১৯ সালের জুলাই মাসে। আগামী বছরের জুনে প্রকল্পের মেয়াদ শেষ হবে। কিন্তু এখন পর্যন্ত এই প্রকল্পের আর্থিক ও ভৌত অগ্রগতি ৩ শতাংশ।

এছাড়া ঢাকা–খুলনা মহাসড়কের দুটি অংশে ধীরগতির যানবাহনের জন্য আলাদা লেনসহ চার লেনে উন্নয়নের অসমাপ্ত কাজ শেষ করতে প্রকল্প নেওয়া হয় ২০১৮ সালে। ২০১৯ সালের জুনে কাজ শেষ হওয়ার কথা। পরে প্রকল্পের মেয়াদ চলতি বছরের জুন পর্যন্ত বাড়ানো হয়। কিন্তু এখনো কাজ শেষ হয়নি।

বেশির ভাগ প্রকল্পেই এমন চিত্র দেখা গেছে। এতে ক্ষোভ প্রকাশ করেন কমিটির সদস্যরা। একজন সদস্য বলেন, অনেক ক্ষেত্রে হয়তো সময় বাড়লেও ব্যয় বাড়েনি। কিন্তু এতে যে জনদুর্ভোগ হচ্ছে, তা বিবেচনায় নিতে হবে। এরও একটি মূল্য আছে।

বৈঠক শেষে কমিটির সভাপতি আবদুস শহীদ গণমাধ্যমকে বলেন, প্রকল্প কেন সময়মতো বাস্তবায়ন হয় না, বারবার কেন সময় বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়, প্রকল্পের আর্থিক ও ভৌত অগ্রগতি কীভাবে সমান হয়—এসব বিষয় কমিটি জানতে চেয়েছে। কিন্তু বেশির ভাগ ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা সন্তোষজনক জবাব দিতে পারেননি। তারা প্রকল্পের মেয়াদ বাড়ানোর কারণ ও অনিয়ম নিয়ে আগামী এক মাসের মধ্যে একটি প্রতিবেদন দিতে বলেছেন।

বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন কমিটির সদস্য চিফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরী, ইউসুফ আবদুল্লাহ হারুন, এ বি তাজুল ইসলাম, আহসান আদেলুর রহমান, ওয়াসিকা আয়শা খান ও খাদিজাতুল আনোয়ার।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*