Main Menu

‘সিলটি পুরিকে’ ধন্যবাদ দিলেন নায়ক ইমন!

Sharing is caring!

মেনুতে কী নেই? সিলেটের ঐতিহ্যবাহী সব খাবারের পাশাপাশি ছিল কাবাব, চিকেন, মাছ, মিষ্টি, আচারসহ নানান খাবার। শুটিংয়ে গিয়ে এমন আতিথেয়তা পাবেন, ভাবেননি চিত্রনায়ক ইমন। এই আতিথেয়তা দিয়েছেন নায়িকা নিশাত নাওয়ার সালওয়া। তিনি সিলেটের মেয়ে। নিজের জেলায় শুটিংয়ে গিয়ে শুটিং ইউনিটের সদস্যদের দাওয়াত করে খাইয়েছেন। ‘বীরত্ব’ সিনেমার শুটিংয়ে তাঁরা এখন টিমসহ সিলেট। জিরো পয়েন্ট, জাফলং, বিভিন্ন চা–বাগান, বর্ডার এলাকাসহ বিভিন্ন স্থানে চলছে শুটিং।

ইমন বলেন, ‘সিনেমার শুটিংয়ে আসামাত্রই আমাদের নায়িকা নিশাত দাওয়াত দিলেন, তাঁদের বাসায় খেতে হবে। পরিবারের সবাইকে আগে থেকেই বলে রেখেছেন। গিয়ে দেখি, আমাদের জন্য অনেক আয়োজন। নিশাত নিজেই আমাদের জন্য মিষ্টি আর চাটনি বানিয়েছিলেন। তিনি সহকর্মী হিসেবে খুবই ভালো। এবার দেখলাম হোস্ট হিসেবেও ভালো। রান্না মোটামুটি ভালো করেন। নিয়মিত এভাবে খাওয়ালে আরও ভালো রান্না শিখবেন।’

কথাগুলো বলেই হাসলেন ইমন। তাঁর পাশেই ছিলেন সালওয়া। তিনি কিছু একটা বললেন, ফোনের এপাশ থেকে ঠিক বোঝা গেল না। ইমন বললেন, ‘নায়িকার বাসায় এমন খাবারের আয়োজনে আমি মুগ্ধ। শুটিংয়ে এসে ঘরোয়া পরিবেশে খাওয়া ভাবাই যায় না। স্পেশাল খাওয়ানোর জন্য সিলেটি পুরিকে ধন্যবাদ।’

ফোনটা এবার সালওয়াকে ধরিয়ে দিলেন ইমন। ‘কিতা খবর, আফনে ভালা আছইন নি?’ বলেই হাসলেন সালওয়া।

তিনি বলেন, ‘আমি আগে কখনোই নিজের জেলায় শুটিং করিনি। প্রথমবার সিলেটে এলাম। নিজের জেলায় শুটিং হলে আলাদা একটা ভালো লাগা কাজ করে। আর সব সময় তো এমন আতিথেয়তা করার সুযোগ হয় না। ঢাকায় সবাই ব্যস্ত। আর আমরা সিলেটে শুটিং করব, এটা নিয়ে বাসার লোকজনও আগ্রহী ছিলেন। এ জন্য দাওয়াত দিয়েছিলাম। আপনারা সিলেটে এলে আমার বাসায় দাওয়াত।’

ইমরান ও পূজার গাওয়া একটি গানে ঠোঁট মেলাবেন ইমন ও সালওয়া। গানটি লিখেছেন ‘বীরত্ব’ সিনেমার পরিচালক সাইদুল ইসলাম রানা। ইমন বলেন, ‘আমাদের পুরো শুটিং হয়েছে ফরিদপুর রাজবাড়ীতে। সিলেটের শীতের সৌন্দর্য তুলে ধরার জন্যই আমরা এখানে গানের শুটিং করছি। গান দিয়েই শেষ হচ্ছে আমাদের শুটিং। পুরো ডাবিং শেষ। এখন আমরা মুক্তির জন্য প্রস্তুতি নেব।’






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*