Main Menu

লকডাউনের মধ্যেই চলছে কওমির দাওরায়ে হাদিস পরীক্ষা

Sharing is caring!

সরকার ঘোষিত কঠোর বিধিনিষেধের মধ্যে দেশের কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণের হুঁশিয়ারি দিয়ে সব কওমি মাদরাসা বন্ধ রাখতে মঙ্গলবার (৬ এপ্রিল) নির্দেশ দেয় শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

মন্ত্রণালয়ের এমন নির্দেশনার পরও চলমান দাওরায়ে হাদিস পরীক্ষা চলবে বলে জানিয়েছে কওমি মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড ‘আল হাইআতুল উলইয়া লিল জামিয়াতিল কওমিয়া বাংলাদেশ’। তারে দাবি, পরীক্ষা নেওয়ার ব্যাপারে সরকারের অনুমতি আছে!

আগে থেকে নির্ধারিত বুধবারের (৭ এপ্রিল) দাওরায়ে হাদিসের দুটি পরীক্ষা নেওয়া হচ্ছে। সকাল ৯টা থেকে একটি পরীক্ষা শুরু হয়েছে। আরেকটি বিকেলে হবে।

কওমি মাদরাসা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক অফিস থেকে জানানো হয়েছে, সরকারের ১৮ দফায় সব আবাসিক ও অনাবাসিক মাদ্রাসা বন্ধ রাখার বিষয়ে বলা হয়েছে। সেখানে পরীক্ষা বন্ধের ব্যাপারে কোনো কথা নেই। তাই সরকারের নির্দেশনা মোতাবেক কওমি আবাসিক অনাবাসিক সব প্রতিষ্ঠান বন্ধ আছে। পরীক্ষা সরকারের অনুমতি সাপেক্ষেই নেওয়া হচ্ছে।

জানতে চাইলে আল হাইআতুল উলইয়া লিল জামিয়াতিল কওমিয়া বাংলাদেশের কার্যকরী সদস্য মুফতি নুরুল আমিন বলেন, সরকারের ঘোষিত স্বাস্থ্যবিধি মেনেই পরীক্ষাগুলো চলবে। এখানে কোনো নির্দেশনা অমান্য করা হচ্ছে না।

তিনি আরও বলেন, গত ৩ এপ্রিল থেকে পরীক্ষা শুরু হয়েছে। সরকারের কঠোর নির্দেশনা জারির পর পরীক্ষার সময় সূচিতে পরিবর্তন আনা হয়েছে। প্রতিদিন দুটি করে পরীক্ষা নিয়ে ৮ এপ্রিল পরীক্ষা শেষ হবে। আজকেও দুই শিফটে পরীক্ষা হচ্ছে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে সংশ্লিষ্ট বোর্ডের এক সদস্য বলেন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে হেফাজতের সংঘর্ষের পর সরকার দ্বিমুখী আচরণ করছে। গত বছর জুলাই মাসে শর্ত সাপেক্ষে সরকার কওমি মাদরাসা খুলে দেয়। এতদিন কোনো সমস্যা না হলেও হঠাৎ করে এমন বিরূপ আচরণ সন্দেহের চোখে দেখছি।

শনিবার (৩ এপ্রিল) থেকে সারাদেশে ২২২টি পরীক্ষা কেন্দ্রে অভিন্ন প্রশ্নপত্রে দাওরায়ে হাদিস পরীক্ষা শুরু হয়েছে। সকাল ৯টা থেকে শিক্ষার্থীরা স্বাস্থ্যবিধি মেনে পরীক্ষায় অংশ নিয়েছে বলে কওমি বোর্ডের পক্ষ থেকে জানানো হয়। ৫ এপ্রিল থেকে কঠোর বিধিনিষেধ জারির পর পরীক্ষার তারিখে পরিবর্তন এনে দিনে দুটি করে পরীক্ষা নেওয়ার ঘোষণা দেয় কওমি বোর্ড।

মঙ্গলবার (৬ এপ্রিল) কারিগরি ও মাদরাসা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (মাদরাসা) হাবিবুর রহমান স্বাক্ষরিত এ সংক্রান্ত নির্দেশনায় বলা হয়, বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকলেও বিভিন্ন স্থানে কিছু আবাসিক ও অনাবাসিক মাদরাসা এখনও খোলা রয়েছে। এ অবস্থায় শুধু এতিমখানা ছাড়া কওমিসহ সব মাদরাসা বন্ধ রাখার জন্য আবারও নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*