Main Menu

যেভাবে ধরা পড়ে ফাহিমের খুনি

Sharing is caring!

আলোচিত পাঠাওয়ের সহ-প্রতিষ্ঠাতা ফাহিম সালেহকে খুন ও তার দেহ খণ্ডিত করার ঘটনায় ব্যক্তিগত সহকারী হাসপিলকে গ্রেফতার করেছে নিউইয়র্ক পুলিশ। প্রথমে খুন করার ধরণ দেখে হত্যাকাণ্ডে পেশাদার কিলার জড়িত থাকার কথা জানায় পুলিশ। তবে বেশ কয়েকটি ক্লু-র মাধ্যমে ফাহিমের খুনির খোঁজ পাওয়া যায়। আর কীভাবে ফাহিমের খুনিকে শনাক্ত করা হয় তা বিস্তারিত জানিয়েছে নিউইয়র্ক পোস্ট।
নিউইয়র্ক পোস্ট জানায়, মঙ্গলবার ফাহিমের খণ্ডিত মরদেহ উদ্ধার করার পরদিন এয়ারবিএনবি’র (বাড়ি ভাড়া নেয়ার অ্যাপ) মাধ্যমে নিউইয়র্কের ক্রসবি স্ট্রিটের একটি বাসায় ওঠেন অভিযুক্ত টাইরেস হাসপিল। ওই লেনদেন ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে সম্পন্ন করেছিলেন তিনি। যার সূত্র ধরে তদন্তকারীরা ফাহিমের ব্যক্তিগত সহকারীর খোঁজ পায়।

সংবাদমাধ্যমটি আরো জানায়, ফাহিম সালেহের ওপর ব্যবহার করা টেজারটি কেনার সময় হাসপিল ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করেছে।

এক গোয়েন্দা কর্মকর্তার বরাত দিয়ে নিউইয়র্ক পোস্ট জানায়, ফাহিমকে খুন করার পর গাড়ি ভাড়া করে ম্যানহাটনের একটি দোকানে যায় হাসপিল। সেখান থেকে তিনি অ্যাপার্টমেন্ট পরিষ্কার করার জিনিসপত্র কেনেন। গাড়ি ভাড়া ও পরিষ্কার করার জিনিসপত্র ফাহিমের ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে বিল পরিশোধ করা হয়।

মঙ্গলবার ফাহিম সালেহের মরদেহ উদ্ধারের পর পুলিশ জানায়, অ্যাপার্টমেন্টের নিরাপত্তা ক্যামেরায় দেখা যায়, কালো স্যুট ও কালো মাস্ক পরিধান করা এক ব্যক্তি ফাহিমের সঙ্গে একই লিফটে ঢুকেন। লিফটটি ফাহিম সালেহের অ্যাপার্টমেন্টের সামনে দাঁড়ায়। তখন দুই জনই বের হয়ে যান।

শুক্রবার হাসপিল গ্রেফতারের পর নিউইয়র্ক পুলিশ ডিপার্টমেন্টের গোয়েন্দা বিভাগের প্রধান রডনি হ্যারিসন সাংবাদিকদের বলেন, নিহত ফাহিমের আর্থিক ও ব্যক্তিগত বিষয়গুলোর তত্ত্বাবধানের দায়িত্বে ছিলেন হাসপিল। অভিযুক্ত হাসপিলের কাছে মোটা অঙ্কের টাকা পেতেন ফাহিম।

বৈদ্যুতিক টেজার গান (যার সাহায্যে মানুষকে সাময়িকভাবে নিশ্চল করা যায়) দিয়ে ফাহিমকে আঘাতের পর নির্মমভাবে কুপিয়ে হত্যা করা হয়।

মঙ্গলবার ফাহিমের নিউইয়র্কের ম্যানহাটনের একটি বিলাসবহুল অ্যাপার্টমেন্টে গিয়ে তার খণ্ডিত মরদেহ দেখতে পান তার বোন। পরে খবর পেয়ে সেখান থেকে ফাহিমের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। ৩৩ বছর বয়সী ফাহিমের মাথা, দুই পা, দুই হাত ইলেকট্রিক করাত দিয়ে বিচ্ছিন্ন করেছিল ঘাতক। পরে প্রাথমিক তদন্তে সোমবার ফাহিমকে হত্যা করা হয় বলে জানা যায়।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*