Main Menu

বিপাকে পড়েছেন সৌদি ক্রাউন প্রিন্স সালমান

কয়েক বছর ধরে সৌদি আরবের বৈশ্বিক বিনিয়োগ আকর্ষণীয় পর্যায়ে নিয়ে গেলেও সাংবাদিক জামাল খাশোগি হত্যাকাণ্ড নিয়ে বেশ বিপাকে পড়েছেন সৌদি ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মাদ বিন সালমান। এ ঘটনা তাকে এক ঝটকায় সব অর্জনের আলো থেকে সরিয়ে নিয়েছে। সূত্র : রয়টার্স।

সাংবাদিক জামাল খাশোগি হত্যাকাণ্ডের কারণে দেশটির ব্যবসায়িক অংশীদার দেশ ও কোম্পানিগুলো বিব্রত। এর মধ্যে ব্রিটিশ ধনকুবের ভার্জিন গ্রুপের প্রধান রিচার্ড ব্রানসন ও উবারের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) দারা খোসরোওশাহি সৌদি আরবের সঙ্গে ব্যবসায়িক সম্পর্ক থেকে সরে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন। বিশেষ করে হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় সৌদি আরবের ভাবমূর্তির ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।

প্রসঙ্গত, যুবরাজ মোহাম্মদের ‘ভিশন ২০৩০’ পরিকল্পনায় রয়েছে অর্থনীতির বহুমুখীকরণ। সৌদি অর্থনীতির রূপান্তর ঘটাতে উচ্চ প্রযুক্তির প্রকল্প থেকে শুরু করে নতুন মেগাসিটির মতো বেশ কিছু প্রকল্প হাতে নিয়েছেন তিনি। ২০১৭ সালে জাতিসংঘের তথ্য অনুযায়ী, সৌদি আরবে প্রত্যক্ষ বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ ১ হাজার ৪৩০ বিলিয়ন ডলার। যার মধ্যে উন্নয়নমূলক বিনিয়োগ হচ্ছে ৩৮০ বিলিয়ন ডলার। দেশটির সার্বভৌম সম্পদ তহবিল ‘দ্য পাবলিক ইনভেস্টমেন্ট ফান্ড’ (পিআইএফ) দেশে ও বিদেশে বিভিন্ন প্রকল্পে ২৫০ বিলিয়ন ডলারের অংশীদার, যা ২০২০ সাল নাগাদ ৪০০ বিলিয়ন ডলারে উন্নীত করার লক্ষ্য সরকারের। তহবিলের চেয়ারম্যান সৌদি ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মাদ বিন সালমান অর্থনীতিকে বহুমুখী করে তুলতে নতুন প্রযুক্তিতে বিনিয়োগের বিষয়ে জোর দিচ্ছেন। কমাতে চাইছেন তেলের ওপর নির্ভরশীলতা। অথচ সাংবাদিক খাশোগি হত্যার ঘটনায় সবকিছু ভুুল হয়ে যেতে বসেছে।