Main Menu

বার্মিংহামে সৈয়দ আব্দুল হান্নান স্মরণে দোয়া মাহফিল

Sharing is caring!

মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক সৈয়দ আব্দুল হান্নান ছিলেন সিলেট বিভাগের একজন প্রবীণ রাজনীতিবিদ, সালিশ ব্যক্তিত্ব ও জগন্নাথপুর উপজেলার সৈয়দপুর-শাহারপাড়া ইউনিয়েনের সাবেক চেয়ারম্যান। একজন প্রগতিশীল রাজনীতিক হিসেবে তিনি ভাষা আন্দোলনসহ সকল গণতান্ত্রিক সংগ্রামে সক্রিয় ছিলেন। ছিলেন আদমজী জুট মিলের শ্রমিক নেতা। আন্দোলন সংগ্রাম করতে গিয়ে জেলও খেটেছেন।

সোমবার (৬ সেপ্টেম্বর) মরহুম এই গুণী ব্যক্তিত্বের স্মরণে বার্মিংহামে তাঁর পরিবারের পক্ষ থেকে এক দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয় । এতে বার্মিংহাম ছাড়াও সান্ডারল্যান্ড, কিডরমিনিস্টার, লিবারপুল, লিডস এবং লন্ডন থেকে মরহুমের স্বজনরা ছাড়াও শুভাকাঙ্খীরা অংশ নেন।

অনুষ্ঠানটি দোয়া মাহফিল হলেও দূর-দূরান্ত থেকে স্বতঃস্ফুর্ত আগত মরহুম আব্দুল হান্নানের অনুরাগীদের আবেগ-ভালোবাসায় পরিণত হয় শোকসভায় । প্রায় অর্ধশত বক্তা মরহুমের বিভিন্ন কৃতিত্ব নিয়ে করেন স্মৃতিচারণ।

অনুষ্ঠানে এক পর্যায়ে টেলিফোনে অংশ নেন সিলেট-৩ আসন থেকে সদ্য নির্বাচিত সংসদ সদস্য প্রবাসী হাবিবুর রহমান হাবিব।

সভায় মরহুম আব্দুল হান্নানের মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে স্বীকৃতি না পাওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করে বক্তারা তাঁকে মরণোত্তর স্বীকৃতি এবং স্বাধীনতা পুরষ্কার প্রদানের জন্য বর্তমান সরকারের প্রতি জোর দাবি জানান।

এছাড়াও বক্তারা মরহুমের নামে জগন্নাথপুরের কোন প্রতিষ্ঠান কিংবা রাস্তার নামকরণ করার দাবিও তুলে ধরেন।

অনুষ্ঠানটি সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় শুরু হয়ে চলে রাত এগারোটা পর্যন্ত। এতে সভাপতিত্ব করেন মরহুমের ছোট ভাই রাজনীতিবিদ, এমসি কলেজের সাবেক ভিপি সৈয়দ মুজিব। অনুষ্ঠান পরিচালনায় ছিলেন বিশিষ্ট ছড়াকার দিলু নাসের।

শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন মরহুমের ভাতিজা হাফিজ মাওলানা সৈয়দ কফিল আহমদ। অনুষ্ঠান শেষে দোয়া পরিচালনা করেন মরহুমের ভাতিজি জামাই রাজনীতিবিদ মাওলানা আব্দূল কাদির সালেহ।

অনুষ্ঠানের সার্বিক তত্ত্বাবধানে ছিলেন বাংলামেইল সম্পাদক ও মরহুমের ভাতিজা সৈয়দ নাসির আহমদ।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মরহুমের জামাতা, যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ সাজিদুর রহমান ফারুক। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- সৈয়দ রাজা মিয়া, মরহুমের ছোট ভাই সৈয়দ লুৎফুর রহমান, খালিদ মিয়া ওলিদ, প্রাক্তন চেয়ারম্যান আবুল হাসান, শেখ মছব্বির, সৈয়দপুর শামসিয়া সমিতি লন্ডনের সভাপতি আহমদ কুতুব, যুক্তরাজ্য জাসদের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আবুল মনসুর লিলু,শেখ আনোয়ার বদরুল, জামান সৈয়দ নাসের, সাবেক মেম্বার সৈয়দ শাহেদ আহমদ, সৈয়দ সালিক মিয়া, সৈয়দ তুহেল, সৈয়দ সেলিম মিয়া, মল্লিক আব্দুল ওয়াদুদ, মরহুমের নাতি সৈয়দ সাকলাইন, ড. ফাইয়াজ, সৈয়দ জিলু হক, সৈয়দ শহিদ মিয়া, সৈয়দ বিলাল, সৈয়দ আলফু।

বার্মিংহামের কমিউনিটি ব্যক্তিত্বদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- আব্দুল লতিফ জেপি, ফয়জুর রহমান চৌধুরী এমবিই, মিছবাউর রহমান মিছবা, সৈয়দ জমশেদ আলী,ফয়েজ উদ্দিন এমবিই, আকমল খান, বুলন চৌধুরী, আব্দুস শুকুর, ফখরুল ইসলাম, দীপু শেখ, রহমত আলী, হোসেইন আহমদ প্রমুখ।

সৈয়দ সাজিদুর রহমান ফারুক বলেন- সৈয়দ আব্দুল হান্নানকে আজীবন মেহনতী মানুষের অধিকার আদায়ে নির্ভিক নেতা উল্লেখ করেতাকে বাংলাদেশের অন্যতম পরিচ্ছন্ন রাজনীতিবিদ হিসেবে আখ্যায়িত করেন। তিনি আরো বলেন- সৈয়দ আব্দুল হান্নানের আজীবন স্বপ্ন ছিল এলাকার উন্নয়ণ এবং মানুষের মুক্তি। তাঁর সেই স্বপ্ন বাস্তবায়নে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে নিয়েছেন মুক্তিযুদ্ধে অংশ।
সৈয়দ সাজিদুর রহমান ফারুক বলেন- সৈয়দ আবদুল হান্নান আজীবন সততায় পরিপূর্ণ, নির্ভিক এবং পরিচ্ছন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক জীবন যাপন করে গেছেনআমরা যদি তার মত আমাদের সামাজিক ও রাজনৈতিক জীবনে গড়তে পারি তাহলে তাঁর আত্মা শান্তি পাবে।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*