Main Menu

জাতীয় পার্টিতে বড় পরিবর্তন আসতে পারে, পদ হারানোর শঙ্কায় জি এম কাদের

Sharing is caring!

জাতীয় পার্টি পরিচালনায় ব্যর্থ জি এম কাদের। নেতাকর্মীদের মধ্যে চলছে চাপা উত্তেজনা। ফলে জাপায় বড় পরিবর্তন আসতে পারে। নবনিযুক্ত মহাসচিবসহ এবার পদ হারানোর শঙ্কায় রয়েছেন পার্টির চেয়ারম্যান জি এম কাদেরও।
মশিউর রহমান রাঙ্গাকে পদ থেকে সরানোর কারণে রংপুরের নেতারা ক্ষিপ্ত। জি এম কাদেরকে রংপুরে ঢুকতে না দেয়ার জন্য প্রস্তুত রাঙ্গাপন্থী তৃণমূল নেতাকর্মীরা। এমনটাই জানালেন দলটির একাধিক জ্যেষ্ঠ নেতা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক পার্টির একজন জ্যেষ্ঠ নেতা বলেন, জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের মৃত্যু পরবর্তী সময়ে জাপায় কোনো উন্নয়ন হয়নি। পার্টির কাউন্সিলের দীর্ঘদিন পরেও পূর্ণাঙ্গ কমিটির বেশ কিছু পদ শূন্য রয়েছে। কাউন্সিলের কিছুদিন পরেই করোনার কারণে স্থবির হয়ে যায় রাজনীতি। ঠিক তেমন সময়ে মহাসচিবকে সরিয়ে দেয়ার ঘটনায় নানান আলোচনা চলছে পার্টিতে।

জাতীয় পার্টির কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হয় গত ২৮ ডিসেম্বর। সেই কাউন্সিলে চেয়ারম্যান ও মহাসচিব পদে ঘোষণা আসে। এরপর দফায় দফায় বিভিন্ন পদের তালিকা প্রকাশ করা হয়। ঘোষিত এসব তালিকা আবার রদবদল করা হয়। তবুও পূর্ণাঙ্গ কমিটি দিতে ব্যর্থ হন চেয়ারম্যান জি এম কাদের।

জি এম কাদের চেয়ারম্যান হওয়ার পর এরশাদের কাছের মানুষদের সঙ্গে কোনো যোগাযোগ রাখেননি। যারা মূলত এই পার্টি চালাতে সহযোগিতা করতেন, তাদের অবহেলা করা হয়। এতে পার্টির অর্থ সংকট দিন দিন প্রকট হতে থাকে।

এসব ঝামেলার মধ্যে হঠাৎ মহাসচিব পদে রাঙ্গাকে সরিয়ে জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলুকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। মহাসচিব পরিবর্তন করায় রংপুরে রাঙ্গাপন্থী নেতাকর্মীদের মধ্যেও চাপা ক্ষোভ বিরাজ করছে। তারা জাপা চেয়ারম্যান জি এম কাদেরকে রংপুরে ঢুকতে না দেয়ার জন্য প্রস্তুত রয়েছে।

পার্টির একাধিক সূত্রমতে, সবমিলিয়ে জাপার নেতৃত্ব সংকট দূর করতে এবং রাজনীতির মাঠে দলকে চাঙা করতে নবনিযুক্ত মহাসচিবসহ চেয়ারম্যান পরিবর্তন ছাড়া উপায় নেই বলে মনে করেন নেতাকর্মীরা। তাই পার্টির চেয়ারম্যান হিসেবে এরশাদ পত্নী বেগম রওশন এরশাদ ও মহাসচিব পদে প্রয়াত এরশাদের ঘনিষ্ঠ গোলাম মসীহ সবার পছন্দের শীর্ষে রয়েছেন বলে জানা গেছে।

এ পরিস্থিতিতে জোর প্রস্তুতি চলছে কাউন্সিল ছাড়াই বিশেষ বৈঠকে সমঝোতার মাধ্যমে এই দুই পদে পরিবর্তন আনার। তাই তৃণমূল নেতাকর্মীদের মানসিকভাবে প্রস্তুত করা হচ্ছে।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*