Main Menu

গ্রেনেড হামলা মামলার ফরমায়েশি রায় হবে, আশঙ্কা বিএনপির

সরকার ফরমায়েশি রায়ের মাধ্যমে ২১ অাগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলায় তারেক রহমানকে ন্যায় বিচার থেকে বঞ্চিত করার অপচেষ্টা করছে বলে অভিযোগ করেছে বিএনপি।

সোমবার বিকেলে রাজধানীর নয়াপল্টন বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ।

মওদুদ আহমদ বলেন, সাবেক প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার প্রকাশিত তথ্য উপাত্তের ভিত্তিতে বিচার অঙ্গনে অন্দরমহলে কালো থাবার আগ্রাসি ব্যবহারে বিএনপি শঙ্কিত। এই কারণে যে, গ্রেনেড হত্যা মামলার সরকার তার অসৎ উদ্দেশ্য বাস্তবায়নের জন্য বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ মামলার আসামীদের সরকার ফরমায়েশি রায়ের মাধ্যমে ন্যায় বিচার থেকে বঞ্চিত করার অপচেষ্টার লিপ্ত আছে।

সরকার বিএনপিকে ধ্বংস করার জন্য আদালতকে যেভাবে ব্যবহার করছে তার আরেকটি নগ্ন উদাহরণ ১০ আগষ্ট হবে বলেও আশঙ্কা প্রকাশ করেন তিনি।

২১ অাগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায়ের পর বিএনপি সংকটে পড়বে- আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের এই বক্তব্য উল্লেখ করে সাবেক এই মন্ত্রী বলেন, ওবায়দুল কাদেরের এই বক্তব্যের পর যে কোন ব্যক্তি ধারনা করতে পারবে, মামলার রায় কী হতে পারে।

২১ অাগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার বিচারের বিষয়ে মওদুদ বলেন, এই মামলার তারেক রহমানসহ বিএনপির কয়েকজন নেতা এবং তৎকালীন প্রশাসনের কয়েকজন উর্ধ্ধতন কর্মকর্তাকে যেভাবে জড়ানো হয়েছে, তা কোন দেশের গণতন্ত্র, স্বাধীনতা, সার্বভৌমত্ব এবং বিচার ব্যবস্থার প্রতি এক নির্লজ্জ বৃদ্ধাঙ্গলি দেখানোর মতো। এই ধরণের ষড়যন্ত্রমূলক বিচার প্রক্রিয়া একমাত্র নৈরাজ্যবাদী সরকারের পক্ষেই সম্ভব। নৈরাজ্যবাদী সরকার তারেক রহমান এবং বিএনপিকে হেনস্তা করার জন্য এ ব্যবস্থা করছে।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির প্রভাবশালী এই সদস্য বলেন, সার্বিক বিবেচনার আমাদের সন্দেহের সৃষ্টি হয়েছে যে, এই নৈরাজ্যবাদী সরকার সুরেন্দ্র কুমার সিনহা এবং বিচারক মোতাহার হোসেনের দৃষ্টান্তকে সামনে রেখে ২১ অাগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার বিচারকের ওপর অবৈধ প্রভাব খাটিয়ে তাদের নীল-নকশা বাস্তবায়নের চেষ্টা করছে।

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার, ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়া, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট খন্দকার মাহবুব হোসেন, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীসহ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।