Main Menu

কবি ও কলামিস্ট ফরীদ আহমদ রেজার মাতা সৈয়দা সু‌ফিয়া আহম‌দের ই‌ন্তেকাল

Sharing is caring!

বিলেতে বাংলা মিডিয়ার অন্যতম প্রাচীনতম সংবাদপত্র সাপ্তাহিক সুরমার প্রধান সম্পাদক, কবি ও কলামিস্ট ফরীদ আহমদ রেজার মাতা সৈয়দা সু‌ফিয়া আহম‌দ ইন্তেকাল করেছেন। ইন্নালিল্লাহি ওয়াইন্না ইলাইহি রাজিউন। তিনি ১৬ জানুয়ারী শ‌নিবার, সন্ধ্যা ৫টায় রয়েল লণ্ডন হাসপাতালে শেষ নি:শ্বাস ত্যাগ করেন। কয়েক বছর থেকে তিনি বার্ধক্যজনিত বিভিন্ন রোগে ভোগলেও শারীরিক চলৎশক্তি সম্পন্ন ছিলেন। মৃত্যুর দুদিন আগে শারীরিক অসুস্থতাজনি কারনে হাসপাতালে ভর্তি করার পর কোভিড পজিটিভ ধরা পড়ে। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হ‌য়ে‌ছি‌লো ৯১ বছর।
মরহুমা সৈয়দা সু‌ফিয়া টাওয়ার হ্যাম‌লে‌টসের বা‌সিন্দা। দে‌শের বা‌ড়ি সুনামগঞ্জ জেলার সৈয়দপুর গ্রা‌মে। তাঁর স্বামী ছি‌লেন মরমী সাধক মরহুম পীর মনফর উদ্দীন আহমদ ওরফে শাব্বির মিয়া পীর সাহেব। শ্বশুড় ছিলেন বিশিষ্ট মরমী সাধক পীর মজির উদ্দিন।
মৃত্যুকা‌লে তি‌নি ৩ ছে‌লে, ৪ মে‌য়ে, লাগা-নাতনি ও প্রচুর আত্মীয় স্বজন রে‌খে গেছেন। মরহু‌মার বড় ছেলে ফরীদ আহমদ রেজা পরিবারের পক্ষ থেকে সবার কা‌ছে তাঁর মা‌য়ের মাগফেরাতের জন্য দোয়া কামনা ক‌রে‌ছেন।
মরহু‌মার অন্যান্য সন্তান‌দের ম‌ধ্যে র‌য়ে‌ছেন সৈয়দপুর শাম‌সিয়া স‌মি‌তির সভাপ‌তি পীর আহমদ কুতুব, সুরমার সা‌বেক সম্পাদক কবি আহমদ ম‌য়েজ, বড় মে‌য়ে যথাক্র‌মে ফৌ‌জিয়া কামাল, রওশনারা বেগম, হাসনা কামাল, সালমা সামাদ।
এছাড়া মরহুমার অনেক নাতী-নাতনীর মধ্যে লেখক-গবেষক সৈয়দ মবনু, বার্মিংহাম থেকে প্রকাশিত বাংলামেইল সম্পাদক সৈয়দ নাসির আহমদ এবং নাতীন জামাই, খেলাফত মজলিশ ইউরোপের সভাপতি অধ্যাপক মাওলানা আব্দুল কাদের সালেহ বিলেতে ও বাংলাদেশে সুপরিচিত।
উল্লেখ্য, সৈয়দা সুফিয়া আহমদ আত্মীয়-স্বজন ও পারিবারিক পরিচিতজনদের কাছে একজন মহিয়সী নারী হিসেবে শ্রদ্ধাস্পদ ছিলেন। ধর্মীয় ঐতিহ্য চেতনা, মরমী ভাবধারা ও সাহিত্য-সাংস্কৃতিক উত্তরাধিকার স্নাত পরিবারের এই মহিয়সী মায়ের ইন্তেকালে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ বিভিন্নভাবে শোক প্রকাশ করেছেন মরহুমার সন্তানদের বন্ধুবান্ধবসহ পরিচিত মহলের অসংখ্যজন।
এদিকে, সাপ্তাহিক বাংলামেইল পরিবারের পক্ষ থেকে গভীর শোক প্রকাশ করা হয়েছে। মরহুমার রুহের মাগফেরাত কামনা করে শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেছেন।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*