Main Menu

আফগানিস্তানের জন্য ১০০ কোটি ডলার সহায়তার প্রতিশ্রুতি

Sharing is caring!

তালেবান ক্ষমতায় আসার ফলে বড় ধরনের মানবিক বিপর্যয়ের মুখোমুখি আফগানিস্তান। এমতাবস্থায় সেটি এড়াতে ৬০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার সহায়তা চেয়েছিল জাতিসংঘ। তবে দাতারা ১০০ কোটি ডলারেরও (১ বিলিয়ন) বেশি অর্থ সহায়তা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। খবর প্রকাশ করেছে আল-জাজিরা।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আফগানিস্তানের জনগোষ্ঠীকে সহায়তার জন্য গতকাল সোমবার সুইজারল্যান্ডের জেনেভায় এক সভার আয়োজন করে জাতিসংঘ। সেখানে দাতা দেশগুলোর কাছে ৬০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার সহায়তা চাওয়া হয়।

সভায় জাতিসংঘ মহাসচিব বলেন, ‘কয়েক দশকের যুদ্ধ, ভোগান্তি এবং নিরাপত্তাহীনতার পর আফগানরা সম্ভবত তাদের সবচেয়ে বিপজ্জনক সময়ের মুখোমুখি। আফগানিস্তানের জনগণের জন্য একটি লাইফলাইন প্রয়োজন।’

বর্তমানে আফগানিস্তানের আর্থিক ব্যবস্থা খুবই সীমিত জানিয়ে তিনি বলেন, সেখানে অবস্থা এমন যে অর্থনীতির মৌলিক বিষয় নিয়ে দেশটিতে কাজ করা যাবে না।

তালেবানরা ক্ষমতা দখল করার আগে থেকেই আফগানিস্তানের প্রায় অর্ধেক জনসংখ্যা বা ১ কোটি ৮০ লাখ মানুষ আন্তর্জাতিক সহায়তার ওপর নির্ভরশীল ছিল। এখন সেটি আরও বাড়তে পারে বলে সতর্ক করেছেন জাতিসংঘসহ বিভিন্ন সাহায্য সংস্থার কর্মকর্তারা।

পূর্ববতি সরকারের শাসনামলে কয়েক’শ কোটি ডলার বিদেশি সহায়তা পেয়ে আসছিল যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশটি। কিন্তু তালেবান ক্ষমতায় আসায় সবকিছু হঠাৎ করেই বন্ধ হয়ে যায়। এমন পরিস্থিতিতে জাতিসংঘের বিভিন্ন কর্মসূচির ওপর চাপ বেড়েছে।

গত শুক্রবার জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস বলেছেন, সংস্থাটি বর্তমানে আর্থিক সংকটে রয়েছে এবং এ কারণে আফগানিস্তানে কর্মীদের বেতন পর্যন্ত দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*