Main Menu

আওয়ামী লীগের বিভিন্ন স্তরে স্বাধীনতাবিরোধীরা জায়গা করে নিয়েছে: মেনন

Sharing is caring!

যারা কোনোদিন বঙ্গবন্ধুকে বিশ্বাস করতেন না তারাই এখন সবচাইতে বড় ভক্ত বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশ ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন।

তিনি বলেছেন, বঙ্গবন্ধুর সমাজতন্ত্রের ধারণা থেকে আমাদের সমাজতন্ত্রের ধারণা ভিন্ন হলেও, অসমতা ও বৈষম্যের বিরুদ্ধাচারণ ও একটি সমতাভিত্তিক সমাজ ও রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে আমরা সব সময় একমত থেকেছি। কিন্তু সময়টাই পাল্টে গেছে। যারা কোনোদিন বঙ্গবন্ধুকে বিশ্বাস করতেন না, এখনও করেন না, তারাই বঙ্গবন্ধুর সবচাইতে বড় ভক্ত।

শুক্রবার বিকালে রাজধানীর তোপখানা রোডস্থ ওয়ার্কার্স পার্টি অফিস চত্বরে বাংলাদেশ যুব মৈত্রীর উদ্যোগে ‘বঙ্গবন্ধু, ৭২-এর সংবিধানের চার মূলনীতি ও বাংলাদেশের বর্তমান রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট’ শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

মেনন আরও বলেন, বঙ্গবন্ধু ধর্মের রাজনীতি, জুলুম-শোষণ, সমাজে বিভাজনের বিরুদ্ধে সারাজীবন সোচ্চার থেকেছেন। সংবিধান রচনায় তারই প্রতিফলন ঘটেছিলো ধর্ম নিরপেক্ষতার মূলনীতির সংযোজনের মধ্য দিয়ে। অথচ এখন হেফাজতকে যুক্ত রাখতে পাঠ্যপুস্তকে পরিবর্তন আনা হয়েছে। ভাস্কর্য অপসারণ করা হয়েছে। যাকে তাকে যখন তখন নাস্তিক-কাফের আখ্যা দেয়া হয়েছে। সমাজে ছড়িয়ে দেয়া হয়েছে সাম্প্রদায়িকতা।

সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা বলেন, উন্নয়ন হচ্ছে, বৈষ্যম যেমন বাড়ছে ঠিক তেমনি উন্নয়নের সাথে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে বৈষম্য। বেকারদের কাজ দিতেও সরকার উদাসিন।

তিনি আরও বলেন, ১৪ দলের প্রধান শরিক আওয়ামী লীগের মধ্যে বিভিন্ন স্তরে আজ স্বাধীনতাবিরোধীরা জায়গা করে নিয়েছে। যা ভবিষ্যতের জন্য হুমকি।

যুব মৈত্রীর সভাপতি সাব্বাহ আলী খান কলিন্সের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য রাখেন ওয়ার্কার্স পার্টির কেন্দ্রীয় সদস্য শরিফ শামসির, যুব মৈত্রীর সহসভাপতি তৌহিদুর রহমান, সহ-সাধারণ সম্পাদক তাপস দাস, অর্থ সম্পাদক কাজী মাহমুদুল হক সেনা, সাংগঠনিক সম্পাদক প্রভাষক রেজোয়ান রাজা, দপ্তর সম্পাদক মিজানুর রহমান মিজান, কেন্দ্রীয় সদস্য ইয়াদুল ইসলাম প্রমুখ।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*